মাত্র ৫টি ধাপ অনুস্মরণ করে আপনার ফেইসবুক আকাউন্ট সুরক্ষিত করে নিন।

বিভাগ: ফেইসবুক


আমরা প্রতিনিয়ত সোস্যাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত থাকি। প্রতিদিন আমরা আমাদের নতুন নতুন ছবি, তথ্য, খবর ইত্যাদি শেয়ার করছি ফেইসবুকে। দিনের পর দিন ব্যবহার করতে থাকা এই ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট যতটা পুরনো হচ্ছে ঠিক ততটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে আপনার আমার। প্রতিনিয়ত ফেইসবুক ব্যবহার করতে আমরা যতটা সময় ব্যয় করি তার ৫টা মিনিটও আমরা এর সুরক্ষার ক্ষেত্রে মনোযোগ দিই না বা দেয়া হয়ে উঠে না। যা আপনার এতোদিন ধরে চালানো অ্যাউান্টটির জন্য হুমকি স্বরুপ হয়ে উঠতে পারে। হারাতে পারেন আপনার এতোদিনের সব ফেইসবুক স্মৃতি সহ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। আজকের এই পোষ্টটি অনুস্মরণ করে জেনে নিতে পারবেন কিভাবে সহজে আপনার আকাউন্টটি সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

১ম কাজ: আকাউন্ট নিরাপত্তার কথা বলতে হলে সর্বাগ্রে আসে পাসওয়ার্ড এর কথা। আমরা অনেকে মনে রাখার সুবিধার্থে খুব সহজ পাসওয়ার্ড দিয়ে থাকি যেমন: নিজের নাম, মোবাইল নাম্বার, প্রিয়জনের নাম, পাসওয়ার্ড, জন্মসাল ইত্যাদি। মনে রাখবেন যেকোন হ্যাকার ছদ্ধবেশে এইসব তথ্য আপনার কাছ থেকে অনায়াসে জেনে নিতে পারে। আর সহজ সহজ পাসওয়ার্ড গুলো বের করা কম্পিউটার প্রোগ্রামের কিছু সময়ের কাজ মাত্র। তাই পাসওয়ার্ড দেয়ার ক্ষেত্রে নিচের কথাগুলো অনুস্বরণ করুন।

  • পাসওয়ার্ড দেয়ার ক্ষেত্রে নিজের নাম, জন্মসাল, মোবাইল নাম্বার, আপনজনের নাম এর মত সহজ পাসওয়ার্ড দেয়া থেকে বিরত থাকুন।
  • পাসওয়ার্ড চালাকি করে password দেয়ার মত কাক চালাকি এড়িয়ে চলুন।
  • আপনার ই-মেইল ও ফেইসবুকের পাসওয়ার্ড একই রকম কখনো রাখাবেন না।
  • সহজ একটা সমাধান হতে পারে, আপনার পাসওয়ার্ডটি যেন ন্যূনতম ৬ অক্ষর কিংবা তার বেশি হয় এবং যে পাসওয়ার্ডটি দিবেন তাতে যেন এই জিনিসগুলো বিদ্যমান থাকে।

- পাসওয়ার্ড এ ছোট ও বড় হাতের লেটার রাখা।

- পাসওয়ার্ডে নাম্বার ব্যবহার করা।

- স্পেশাল লেটার ব্যবহার (যেমন: !@#$%^&)

- উদাহারণ স্বরুপ: U$x23px%3 (এই উদাহারণটি কেউ পাসওয়ার্ড দিয়েন না। এইরকম নিয়মে আপনি আপনার পাসওয়াটি বানিয়ে নিন)

২য় কাজ: আপনার যেই ই-মেইল/ মোবাইল নাম্বার দিয়ে আপনার অ্যাকাউন্টটি খুলেছেন তা public করা থাকলে only me করে দিন। এটি আপনার অ্যাকাউন্ট সেটিং এ General Settings এ পাবেন।

৩য় কাজ: ফিসিং সাইট থেকে সাবধান থাকুন। কোন একটি সাইট হুবহু ফেইসবুকের মত মনে করে তাতে লগইন করার চেষ্টা করবেন না। ব্রাউজারের অ্যাড্রেসটি আসল ডোমেইন কিনা দেখে নিন অর্থাৎ facebook.com বা fb.com কিনা দেখে নিন।  যারা ফিসিং সাইট বুঝেন না তাদের সহজে বুঝার্থে ফিসিং সাইট হল কোন একটি সাইটের মত হুবহু একটি সাইট ভিজিটরের কাছে প্রদর্শন করানো যা দেখে ভিজিটর আসল সাইট মনে করে তার আইডি পাসওয়াড দিয়ে লগইন করার চেষ্টা করলে হ্যাকার তার তথ্যগুলো হাতিয়ে নেয়। বিষয়টি আরো একটু পরিষ্কার করতে বলছি - ধরুন হ্যাকারের কাছে একটি ডোমেন আছে যা অনেকটা facebook.com এর কাছাকাছি যেমন- ufacebook, facebooklovexyz, facebookmyday ইত্যাদি। আমরা যারা প্রতিদিন ফেইসবুকের যে লগিন পেইজটি দেখতে অভ্যস্ত হ্যাকার সেরকম একটি পেইজ বানিয়ে আপনাকে লোভ দেখিয়ে কিংবা অ্যাডাল্ট কন্টেনের জন্য প্রলোভন দেখিয়ে একটি লিংক দিল আর আপনি সেটি দেখার জন্য লিংকে প্রবেশ করলেন তারপর লিংকটির পেইজটি ফেইসবুকের মত দেখতে পেয়ে আপনি আপনার আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে প্রবেশ করতে গেলেই সর্বনাশ। তাই সচেতনতার জন্য কোন একটি সাইট ফেইসবুকের মত দেখতে পেয়ে কোন কিছুর লোভে প্রবেশ করা থেকে বিরত থাকুন।

৪র্থ কাজ: প্রয়োজনে আপনার বন্ধু, সাইবার ক্যাফে, অফিসে ফেইসবুক ব্যববহার করলে অবশ্যই ব্যবহার শেষে লগআউট করে নিন। লগআউট করতে যদিও ভুলে যান তবে আপনার ডিভাইসে প্রবেশ করে ফেইসবুক সেটিং থেকে সবগুলো লগিং সেশন ডিলিট করে দিন। তবে সবসময় অন্যকোন কম্পিউটারে ফেইসবুক ব্যবহারের পর লগআউট করে আসবেন।

৫ম কাজ: আপনার ফ্রেন্ডলিষ্ট পাবলিক করা থাকলে তা পরিবর্তন করে নিন।

 

বি:দ্র: আপনি যদি পোষ্টটি উপকারী মনে করে তবে এই পোষ্টটি সবার সচেতনতার জন্য শেয়ার করুন। 


এই রকম আরো পোষ্ট